স্মার্টফোনকে বানান স্যাটেলাইট ফোন

জলে-জঙ্গলে-আকাশে যেখানেই থাকুন না কেন, এবার একটা বিষয় একেবারে নিশ্চিত। আপনার মোবাইলের নেটওয়ার্ক আর আপনার সঙ্গে লুকোচুরি খেলতে পারবে না। কারণ মোবাইল স্ক্রিনে নেটওয়ার্ক দেখাক বা না দেখাক, ফোন করতে কোনো সমস্যাই হবে না!

কীভাবে? মাত্র কয়েকটা ধাপে খুব সহজে আপনার স্মার্টফোনকে স্যাটেলাইট ফোনে বদলে ফেলে। থুরায়া নামে একটি স্যাটেলাইট ফোন প্রস্তুতকারক সংস্থা অ্যাডাপ্টর এবং স্যাটস্লিভ অ্যাপের মাধ্যমে এই অসম্ভবকে সম্ভব করেছে। থুরায়া মূলত সংযুক্ত আরব আমির শাহির আঞ্চলিক মোবাইল স্যাটেলাইট সার্ভিস প্রদানকারী সংস্থা।

সাধারণ স্মার্টফোন এবং স্যাটেলাইট ফোনের পার্থক্য কী? স্মার্টফোন নিজস্ব মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে যোগাযোগ স্থাপন করে। কিন্তু স্যাটেলাইট ফোনের ক্ষেত্রে তেমন কোনো নেটওয়ার্কের প্রয়োজন নেই। পরিবর্তে সরাসরি স্যাটেলাইটের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করে এই ফোন।

সাধারণ স্মার্টফোন এবং স্যাটেলাইট ফোনের পার্থক্য কী? স্মার্টফোন নিজস্ব মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে যোগাযোগ স্থাপন করে। কিন্তু স্যাটেলাইট ফোনের ক্ষেত্রে তেমন কোনো নেটওয়ার্কের প্রয়োজন নেই। পরিবর্তে সরাসরি স্যাটেলাইটের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করে ফেলে এই ফোন।

স্যাটস্লিভ থুরায়া সংস্থারই একটি অ্যাপ। স্যাটেলাইট অ্যাডাপ্টরের সঙ্গে স্মার্টফোন যুক্ত করার পর ফোনে এই অ্যাপ ওপেন করতে হয়। স্যাটস্লিভ অ্যাপ আপনার ফোনের সঙ্গে স্যাটেলাইটের যোগাযোগ স্থাপন করবে। ফোনের যাবতীয় কনট্যাক্টের অ্যাকসেস পাবেন এই অ্যাপের মাধ্যমে।

ফোন, মেসেজ, ই-মেইল বা সোশ্যাল মিডিয়া স্মার্টফোনে যে যে কাজ আপনি করতেন সবই করতে পারবেন স্যাটেলাইট মোড অন হওয়ার পর। আবার প্রয়োজনে মোড বদলে স্যাটেলাইট থেকে সাধারণ স্মার্টফোনেও পাল্টে নিতে পারেন নিজের ফোনকে।

অ্যাডাপ্টরের ওজনও খুব বেশি নয়। ৩৭ গ্রাম। ফলে মোবাইল ফোন খুব ভারী হওয়ার ভয় নেই।

এখন পর্যন্ত মাত্র ১৬১টি দেশে থুরায়া এই সুবিধা দিচ্ছে। গুগল প্লে স্টোর থেকে স্যাটস্লিভ অ্যাপ্লিকেশনটাও ডাউনলোড করা যাবে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *